healtipsbd

সুস্থ থাকার কয়েকটি সহজ উপায়

প্রত্যেকটি মানুষ চায় সুস্থ ভাবে জীবন যাপন করতে। কিন্ত নানা ধরনের বদ অভ্যাসের কারনে শরীরে বিভিন্ন ধরনের রোগ-জীবাণু বাসা বাধে। নিচের কয়েকটি টিপস আপনাকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করবে।

পর্যাপ্ত ঘুম

ঘুম মানুষকে সারাদিন কর্মঠ রাখতে সাহায্য করে। পর্যাপ্ত ঘুম না হলে কোন কিছুই ভাল লাগে না এবং কোন কাজেই মন বসেনা। বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে দেখেছে যে, মানুষের গড় আয়ু কমে যাওয়ার অন্যতম একটি কারন হলো কম ঘুমানো। ঘুমের সঠিক সময় হচ্ছে রাত দশটা থেকে সকাল ছয়টা।

পানি পান

কথায় আছে পানির অপর নাম জীবন। প্রসাবের মাধ্যমে আমাদের শরীরের জীবাণু বের হয়ে যায়। আর প্রসাব হবে তখনি যখন আপনি বেশি বেশি পানি পান করবেন। সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে দুই গ্লাস পানি শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ গুলো সচল রাখতে সাহায্য করে।

নিয়মিত ব্যায়াম

সকালে কিছু সময় ব্যায়াম করা সাস্থের জন্য খুবি ভাল। সকালে নিয়মিত ব্যায়াম শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ গুলোকে কর্মক্ষম করে। এ জন্য প্রত্যেক দিন সকালে ব্যায়াম, হাটাহাটি বা জগিং এর অভ্যাস করলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

সঠিক খাদ্যা অভ্যাস

সঠিক খাদ্যা অভ্যাস সুসাস্থের জন্য খুবি গুরুত্বপূর্ন। পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। সকালের নাস্তায় ফল-মূল রাখলে ভাল। দুপুরের খাবার ১টার মধ্যে এবং রাতের খাবার রাত ৮টার মধ্যে গ্রহন করা উচিৎ। চর্বী যুক্ত খাবার যতই কম খাওয়া যায় ততই ভাল। চর্বী যুক্ত খাবারের কারনে শরীরের ওজন বেড়ে যায় এবং হৃদ রোগের আসঙ্কা বেড়ে যায়। শাক সবজি বেশি করে খেতে হবে।

পরিস্কার পরিছন্নতা

সবসময় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকলে মন ভাল থাকে। টয়লেট ব্যাবহারের পর ভাল করে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলতে হবে। এছাড়া খাবারের আগে ও পরে ভাল করে হাতমুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। রাতে ঘুমানোর আগে ব্রাস করতে হবে।

 

এই সব নিয়ম কানুণ একজন বেক্তি প্রত্যেকদিন অনুসরন করলে সাস্থ ভাল থাকবে এবং দৈনন্দিন জীবনে সুখি হতে পারবে। পোস্টটি ভাল লাগলে অবশ্যাই শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।

 

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *